আলোচিত

সিরাজগঞ্জে বরবাহী মাইক্রোবাসে ট্রেনের ধাক্কা, বর-কনেসহ নিহত ১০

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ইঞ্জিনের সঙ্গে আটকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে গিয়ে পড়ে মাইক্রোবাস। এই ঘটনায় বর-কনেসহ দশজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তিনজন।

সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উল্লাপাড়া উপজেলার পঞ্চক্রশী ইউনিয়নের সলপ হাটখোলা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বর সিরাজগঞ্জ শহরের কান্দাপাড়া গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে রাজন (২৫) ও কনে উল্লাপাড়া পৌর শহরের এনায়েতপুর গুচ্ছ গ্রামের আব্দুল গফুর শেখের মেয়ে সুমাইয়া খাতুন (১৯), বিয়ের যাত্রী সয়াধানগড়ার সুরুজ শেখের ছেলে সবুজ (২১), রামগাতী গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের ছেলে আব্দুস সামাদ (৫৫) ও তার ছেলে শাকিল হোসেন (২১), সয়াগোবিন্দ মিলন মোড় এলাকার মৃত একরামুলের ছেলে মাইক্রোবাসের চালক স্বাধীন (৪০) ও দিয়ারধানগড়া আলতাফ হোসেনের ছেলে শরীফ (২৬), কালিয়া হরিপুর চুনিয়াহাটির মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে ভাষা শেখ (৫৫) । বাকি ২ জনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

স্থানীয় সলপ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শওকত হোসেন বলেন, উল্লাপাড়া থেকে সিরাজগঞ্জগামী মাইক্রোবাস উল্লাপাড়ার সলপ হাটখোলা এলাকায় ঢাকা-ঈশ্বরদী রেলপথে অরক্ষিত রেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেসের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। একই সঙ্গে মাইক্রবাসটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সঙ্গে আটকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে গিয়ে পড়ে। এ সময় ট্রেনের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বর-কনেসহ মাইক্রোবাসের ৯ যাত্রীর নিহত হন। এই ঘটনার পর দমকল বাহিনী ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে। নিহত ব্যক্তিরা সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর গ্রাম থেকে একটি মাইক্রোবাসে বরযাত্রী নিয়ে উল্লাপাড়ার চর ঘাটিনা গ্রামে গিয়েছিল। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে কনে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

রাত ১১টার দিকে উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আরিফুজ্জামান ও উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেওয়ান কওশিক আহমেদ নয়জন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তাঁরা জানান, লাশগুলোর ময়নাতদন্তেরর জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button