খেলাধুলা

মেসির স্বপ্ন ভেঙে কোপার ফাইনালে ব্রাজিল

গাজীপুর কণ্ঠ, খেলাধুলা ডেস্ক : ক্লাব ফুটবলে সব বড় ট্রফিই উঠেছে তার হাতে। বার্সেলোনার হয়ে মৌসুমের পুরোটা জুড়েই ঝড় তুলছেন তিনি। কিন্তু জাতীয় দলের হয়ে পুরোপুরি ভিন্ন এক দৃশ্য। এখন অব্দি বড় ট্রফির দেখা নেই। রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর সরেই দাঁড়িয়েছিলেন। কিন্তু কী মনে ফিরলেন। লিওনেল মেসি খেললেন এবারের কোপা আমেরিকায়। কিন্তু এবারও দেশের হয়ে তেমন কিছুই করা হল না!

বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে কোপা আমেরিকার সেমি-ফাইনালে মেসির স্বপ্ন ভেঙে ফাইনালে ব্রাজিল। পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা পাত্তাই দিল না আর্জেন্টিনাকে। ২-০ গোলের জয়ে স্বাগতিকরা পেয়ে গেল শতাব্দী প্রাচীন এই ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালের টিকিট।

বেলো হরিজন্তের মিনেইরো স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলার ১৯ মিনিটের গ্যাব্রিয়েল জেসুসের গোলে এগিয়ে যায় সাম্বা নৃত্যের দেশটি। এরপর ঘরের মাঠে ৭১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রবার্তো ফিরমিনো। এই জয়ে ফুটবল মাঠের চির শত্রু আর্জেন্টিনাকে বিদায় করে কোপা ফাইনালে উঠে গেল নেইমারবিহীন ব্রাজিল।

২০০৭ সালের পর ফের ফাইনালে পা রাখল সেলেসাওরা। লাতিন ফুটবলের এই শ্রেষ্টত্বের আসরে এক যুগ পর ফের ট্রফির সুবাস পাচ্ছে দলটি। অন্যদিকে মেসির মতো ব্যর্থ আর্জেন্টিনাও। সেই ১৯৯৩ সালের পর থেকে দেশটি পায়নি কোন বড় ট্রফি। প্রতিবারই কোপা কিংবা বিশ্বকাপে ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামলেও ধরা দেয়না সাফল্য।

যদিও ম্যাচে প্রথম বড় আক্রমণটা ছিল আর্জেন্টিনারই। ১২তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো মেসির দল। কিন্তু লেয়ান্দ্রো পারেদেসের আচমকা শট ক্রসবার ঘেষে চলে যায় মাঠের বাইরে। তারপর অবশ্য খেলার নিয়ন্ত্রণ নেয় তিতের দল। ১৯তম মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন জেসুস। ফিরমিনোর পাস ধরেই নিশানা খুঁজে নেন তিনি (১-০)।

ভাগ্যটাও আসলে সঙ্গে ছিল না মেসির। না হলে ৩০তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো তার দল। তারই করা ফ্রি-কিকে দুর্দান্ত হেড নিয়েছিলেন সার্জিও আগুয়েরো। কিন্তু ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। এরপর ৫০তম মিনিটেও হতাশ হয় আর্জেন্টাইন সমর্থকরা। এবার আগুয়েরোর পাস থেকে বল পেয়ে লাউতারো মার্তিনেস শট নিয়েছিলেন ব্রাজিলের পোষ্টে। কিন্তু জোড়ালো ছিল না সেই প্রচেষ্টা।

একইভাবে ৫৭তম মিনিটে মেসির বাঁ পায়ের প্রচন্ড গতির শট থেকে ভেসে যাওয়া বল ব্রাজিলের পোস্টে লেগে ফিরে আসে। তারপর আগুয়েরোকে সুযোগ তৈরি করে দিলেও গোলের দেখা পায়নি দল।

এরমধ্যে আরেকটা সুযোগ কাজে লাগায় ব্রাজিল। এবারও আর্জেন্টাইন রক্ষণভাগই দায়ী। ৭১তম মিনিটে জেসুস একক প্রচেষ্টায় ঢুকে পড়েন আর্জেন্টিনার সীমানায়। প্রচন্ড গতিতে ডি-বক্সে ঢুকে পাস দেন ফাঁকায় দাড়ানো ফিরমিনোকে। তিনি নিশানায় পাঠাতে ভুল করলেন না (২-০)!

এই জয়ে হেড টু হেডেও আরো এগিয়ে গেল ব্রাজিল। চির প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে এটি তাদের ৪২তম জয়। আর আর্জেন্টিনা জিতেছে ৩৮টি ম্যাচে। ২৬ ম্যাচ ড্র।

মারকানা স্টেডিয়ামে ফাইনালে রোববার কোপা আমেরিকার ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ পেরু অথবা চিলি। এই দুই দেশ বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার সকালে মুখোমুখি হবে আরেক সেমি-ফাইনালে।

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button