আন্তর্জাতিক

লোকসভা নির্বাচন: ভোট দিতে গিয়ে হিটস্ট্রোকে ৫ জনের মৃত্যু

গাজীপুর কণ্ঠ, আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গোটা ভারতজুড়ে চলছে তাপপ্রবাহ। তার মধ্যে চলছে লোকসভা নির্বাচন। ভোটে প্রচণ্ড গরমে পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) ভারতের কেরালা রাজ্যে দ্বিতীয় ধাপের ভোটের দিন এ ঘটনা ঘটে। এদিন কোনো সহিংসতায় প্রাণ না গেলেও, জীবন কেড়ে নেয় ভয়ংকর তাপপ্রবাহ।

মৃতদের মধ্যে মধ্যে চারজন ভোটার একজন পোলিং এজেন্ট বলে জানা গেছে। ভোটাররা যথাক্রমে রাজ্যটির মালাপ্পুরাম, পালাক্কাদ, কোঝিকোড় এবং আলপ্পুঝা বাসিন্দা।

জানা গেছে, রাজ্যটির ওট্টাপালামে এদিন দুপুরে ভোট দেওয়ার পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন চন্দ্রন (৬৮) নামে এক ভোটার। পরে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে এলে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা। এদিন সেখানে তাপমাত্রা ছিল ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এছাড়া ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরা পথে মাল্লাপুরম জেলার ত্রিরুরে এটি সিদ্দিকী (৬৩) নামে এক মাদরাসা শিক্ষকের হিটস্ট্রোকে মৃত্যু হয়। যদিও সে অঞ্চলের তাপমাত্রা ছিল ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ৬০ শতাংশ।

এদিকে আরেকজন ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে কোমবোত্তাইল কন্দন (৭৬) নামে একজনের মৃত্যু হয়। তিনি ভিলায়োদি এলাকার বাসিন্দা। ঘটনাটি ঘটে আলপ্পুঝা জেলার আম্বালাপুঝা এলাকায়। এই এলাকায় তাপমাত্রা ছিল ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ৬৮ শতাংশ। অপরজন এসএনভিটি উচ্চবিদ্যালয় ১৩৮ নম্বর বুথে ভোট দিয়ে বাড়ি ফিরে আসেন সোমারাজন (৮২) নামে এক ভোটার। পরে তারও হিটস্ট্রোকে মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবার সূত্রে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে, কোঝিকোড় টাউনের ১৬ নম্বর বুথে দায়িত্বে ছিলেন বামজোট ‘লেফট ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’ (এলডিএফ) এর পোলিং এজেন্ট আনিস আহমেদ (৬৬)। হঠাৎ করেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে গেলে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকেরা।

এবার ভারতে লোকসভা নির্বাচন চলবে সাত দফায়। আজ শেষ হলো দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন আরও পাঁচ ধাপ বাকি। যা শেষ হবে ১ জুন। ফল ঘোষণা ৪ জুন। এই গরমে ভোটে প্রাণ গেল পাঁচজন নাগরিকের।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) ভোট প্রচারণায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য প্রতিবছর ঠিক এই সময়টাতেই নির্বাচন ফেলা হয়। আর অন্যবার যদিও মে মাসের মাঝামাঝি ফল ঘোষণা হয়ে, এবার বিজেপিকে সুবিধা করার জন্য নির্বাচন এতদিন ধরে নিয়ে গেছে নির্বাচন কমিশন।

মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন করে বলেন, কাকে সুবিধা করে দেওয়ার জন্য? বিজেপিরা কি বুঝতে পারে না এই গরমে মানুষের কষ্ট হচ্ছে।

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button