আলোচিতসারাদেশ

মসজিদের মাইক দিয়ে স্ত্রীকে তালাক দিলেন আ.লীগ নেতা

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন জাকির হোসেন (৩৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতা। গত ৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার আছর নামাজের পরে উপজেলার চরবানীপাকুরিয়া ইউনিয়নের রান্ধুণীগাছা গ্রামের এক মসজিদের মাইকে এমন ঘোষণা দেন তিনি।

জাকির হোসেন জেকে উপজেলার চরবাণীপাকুরিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং বর্তমানে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সম্পাদক।

পরে এ বিষয়টি নিয়ে ভিডিও বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) ও টিকটকে জাকির হোসের জেকে নামক ফেসবুকে আইডিতে আপলোড করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে ভিডিওটি ডিলিট করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আরও কয়েকবার মৌখিক তালাক দিলেও বিষয়টি আমলে না নিলে শেষ পর্যন্ত মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন জাকির। তাই গত ৫ ডিসেম্বর আছর নামাজ শেষ করে মুসুল্লিরা মসজিদ থেকে বের হলে জাকির মসজিদে ঢুকে মাইকে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে নিজের বউকে তালাক প্রদান করেন বলে জানান মসজিদের ইমাম সহ স্থানীয় বাসিন্দারা।

বিষয়টি নিয়ে জাকির হোসেন জেকের তালাক প্রাপ্ত স্ত্রী শিখা জানান, বিষয়টি তিনি লোক মুখে শুনেছেন। গত ১০ বছর ধরে বিয়ে হলেও নির্যাতনের শিকার হয়ে স্বামীর বাড়িতে টিকতে পারেন নি একদিনও।

এসব বিষয়ে জানতে জাকির হোসেনবলেন, আপনি যেটা শুনেছেন এটাই সত্যি। তার স্ত্রী ঝগড়াটে, পরের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন, বাড়িতে না থাকার কারণে তালাক দেওয়া হয়েছে। শরীয়ত মোতাবেক তালাক দেওয়া হয়েছে। দু–একদিনের মধ্যে আদালতের মাধ্যমে তালাকের নোটিশ পাঠানো হবে।

মসজিদের ইমাম মাওলানা সোহরাব আলী সংবাদ মাধ্যমকে জানান, সেদিন আছরের নামাজের পরে মুসুল্লিরা বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। তখন জাকির হোসেন মসজিদে প্রবেশ করে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন আমার কিছু কথা আছে আপনারা শুনেন। তখন সে মসজিদের মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে তার স্ত্রীর নাম ধরে দুইবার তালাক দেন। এরপর আমি তাকে ধাক্কা দিয়ে বাধা দেয়ার চেষ্টা করি কিন্তু তারপরও সে তার স্ত্রীকে তিনবার তালাক দেন বলে জানান তিনি।

চরবাণীপাকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহাদত হোসেন সংবাদ মাধ্যমকে জানান, এমন একটি ঘটনা লোক মুখে শুনেছি, যে জাকির নামে একজন তার স্ত্রীকে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে তালাক দিয়েছে।

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button