আলোচিতরাজনীতিসারাদেশ

মন্ত্রী-এমপি’রা বিদ্রোহী প্রার্থী হলেই বহিষ্কার, শিগগিরই আসছে সিদ্ধান্ত

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে পারবেন না আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তালিকা থেকে বাদ পড়া বর্তমান মন্ত্রী, সংসদ সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তাদের কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে আজীবনের জন্য বহিষ্কারের মুখে পড়তে পারেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায় থেকে এমন ঘোষণা আসছে বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, বিএনপিসহ অনেক দল অংশ না নেওয়ায় ২০১৪ সালের নির্বাচনে ১৫৩টি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা, যা নিয়ে বিভিন্ন মহলে বিতর্ক দেখা দেয়। এবার তার পুনরাবৃত্তি দেখতে চায় না আওয়ামী লীগ। ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন চায় দলটি। বিএনপি ও তাদের মিত্র দলগুলো শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে না এলে নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ও ভোটারদের অংশগ্রহণমূলক করতে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বিষয়ে খানিকটা নমনীয় থাকবে আওয়ামী লীগ। ভোটকে উৎসবমুখর করে তুলতেই এবার এমন অবস্থান নিয়েছে দলটি। গত রোববার গণভবনে দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এমন আভাস দিয়েছেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা।

তবে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে শেষ পর্যন্ত এ সুযোগ পাচ্ছেন না সরকারের বর্তমান মন্ত্রী, এমপি ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। ‘নৌকার’ বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে তাদের কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে দলে চিরতরে নিষিদ্ধ হতে পারেন তারা। আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ে এরই মধ্যে এমন আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই বিষয়টি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জানা গেছে, এবার ৩০০ আসনে দলের মনোনয়ন চেয়েছেন ৩ হাজার ৩৬২ জন। প্রতি আসনে গড়ে নৌকার প্রার্থী হতে মনোনয়ন চান ১১ জন। একজন নৌকা পেলেও বাকি ১০ জন এখন কী করবেন—তা নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। আর তাতে বেশ জোরেশোরে বাতাস দিচ্ছে বিকল্প প্রার্থী (ডামি) রাখার দলীয় পরামর্শ। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আনতে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বিদ্রোহী তকমা দেওয়া হবে না—আওয়ামী লীগের এমন নরম সুরে নৌকাবঞ্চিত অনেকেই ভোটের লড়াইয়ে নামতে পারেন। সেক্ষেত্রে অন্যরা ছাড় পেলেও বর্তমান মন্ত্রী, এমপি ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গেলে তারা আজীবনের জন্য বহিষ্কার হতে পারেন। খুব শিগগিরই এমন সিদ্ধান্ত দেওয়া হতে পারে।

 

সূত্র: কালবেলা

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button