গাজীপুর

গাজীপুরে পুলিশের সাঁজোয়া যানে সাউন্ড গ্রেনেড বিস্ফোরণ: ৫ পুলিশ সদস্য আহত

বিশেষ প্রতিনিধি : গাজীপুরে বেতন বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলনরত পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভের সময় নিয়োজিত পুলিশের একটি আর্মার্ড পার্সোনেল ক্যারিয়ার (এপিসি) বা সাঁজোয়া যানের ভেতরে সাউন্ড গ্রেনেড বিস্ফোরণ হয়ে পাঁচজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের ডান হাতের কব্জি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

বুধবার (৮ নভেম্বর) বিকেলে ভাওয়াল বদলে আলম সরকারি কলেজের সামনের ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বেতন বৃদ্ধির দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে গাজীপুরের কোনাবাড়ী, কাশিমপুর, সফিপুর, চান্দনা চৌরাস্তা ও মৌচাকসহ বিভিন্ন এলাকায় কারখানার শ্রমিকরা আন্দোলন করছেন। বুধবার সকালেও আন্দোলন করে পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এসময় এক নারী শ্রমিক নিহত হয়। এরপর পরিস্থিতি পুরোই স্বাভাবিক ছিল। তবে বিকেলে শ্রমিকরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের নাওজোড় এলাকায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। সে সময় পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবের সমন্বয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। এ সময় শ্রমিকরা পিছু হটে। পরে তারা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ভাওয়াল বদলে আলম সরকারি কলেজের সামনের ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে তারা। ঠিক এ সময় পুলিশের এপিসি কারের ভেতর থেকে সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করার সময় বিস্ফোরণ ঘটে। এতে আহত হন ৫ পুলিশ সদস্য।

আহত পুলিশ সদস্যদের নেওয়া হয় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম সংবাদ মাধ্যমকে জানান, প্রবীর (৩০), ফুয়াদ, খোরশেদ (৩০), আশিকুল (২৭) ও বিপুল (২৪) নামে পাঁচ পুলিশ সদস্যকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। এদের মধ্যে প্রবীর, ফুয়াদ ও খোরশেদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকিদের এ হাসপাতালেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এদের মধ্যে ফুয়াদের অবস্থা বেশি আশঙ্কাজনক। তার ডান হাতের আঙুল ও কব্জির নিচের অংশ গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. মাহবুব আলম সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, বুধবার শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে মোট আট পুলিশ সদস্য আহত হন। এর মধ্যে সকালে সংঘর্ষের ঘটনায় তিনজন ও বিকেলে নাওজোড় এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনা পাঁচজন রয়েছেন। বিকেলে যে পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন তারা মূলত শ্রমিকদের সাথে সংঘর্ষ ও এপিসি কারে বিস্ফোরণের শিকার। শ্রমিকরা মহাসড়ক ছেড়ে চলে যাচ্ছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

উল্লেখ্য  : বুধবার সকালে পোশাক শ্রমিকদের নিম্নতম মজুরি সাড়ে ২৩ হাজার টাকা করার দাবিতে মহানগরের কোনাবাড়ি এলাকায় বিক্ষোভরত শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে আঞ্জুয়ারা খাতুন (৩০) নামে এক নারী শ্রমিক নিহত হয়।

 

আরো জানতে…….

গাজীপুরে পুলিশ-পোশাকশ্রমিক সংঘর্ষ: নারী শ্রমিক নিহত

 

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button