গাজীপুর

শ্রীপুরে দুটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দিলেন ভ্রাম্যমাণ আদালত

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : শ্রীপুরে কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছাড়া কার্যক্রম পরিচালনা করার দায়ে দুটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেই সঙ্গে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা করে দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ মে) দুপুরে এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরিকুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রণয় ভূষণ দাস।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, শ্রীপুরের মাওনা চৌরাস্তার আনোয়ারা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মাওনা পপুলার মেডিকেল সেন্টার ও কোয়ালিটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষকে মোট ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে আনোয়ারা ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও মাওলা পপুলার মেডিকেল সেন্টার দুটি যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছিল বলে জানান ভ্রাম্যমাণ আদালত। এগুলোর প্রতিটিকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান দুটিকে শুক্রবার থেকেই বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অপর দিকে কোয়ালিটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নিবন্ধন মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে। কর্তৃপক্ষ নবায়ন করার জন্য আবেদন করেছে। কিন্তু নবায়ন হওয়ার আগেই তারা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল। স্বল্প জনবল ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থাকায় প্রতিষ্ঠানটিকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন নবায়ন করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রণয় ভূষণ দাস বলেন, আগামী দুই দিনের মধ্যে শ্রীপুরের অনিবন্ধিত সব হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দেওয়া হবে। এরই মধ্যে শুক্রবার ভ্রাম্যমাণ আদালত দুটি প্রতিষ্ঠানকে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। আবারও তারা কার্যক্রম পরিচালনা করলে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী পরে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বন্ধ করে দেওয়া আনোয়ারা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ব্যবস্থাপক লিটন সরকারের ব্যক্তিগত মুঠোফোনে কল করে তাঁর বক্তব্য জানতে চাওয়া হয়। তিনি ফোন রিসিভ করেন। কিন্তু গণমাধ্যমকর্মী পরিচয় পাওয়ার পর কোনো প্রশ্নেরই জবাব না দিয়ে সংযোগ কেটে দেন। অপর দুটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

সূত্র: প্রথম আলো

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button