গাজীপুর

কালীগঞ্জে প্রায় ১২ লাখ টাকা মূল্যমানের গাছ কেটে ব্যবসায়ীর জমি দখলের পাঁয়তারা ও হত্যার হুমকি 

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : কালীগঞ্জের নাগরী ইউনিয়নের পানজোড়া এলাকায় জোড়পূর্বক প্রায় ১২ লাখ টাকা মূল্যমানের ফলজ ও বনজ গাছ কেটে এক ব্যবসায়ীর জমি দখলের পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও ওই ব্যবসায়ীকে হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে।
সত্যতা নিশ্চিত করে কালীগঞ্জ থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জিল্লুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।
ভুক্তভোগী পানজোড়া এলাকার আউয়ালের ছেলে ব্যবসায়ী আ: ছালাম (৪২)। তিনি ওয়ালটন গ্রুপের ইলেকট্রনিক্স পণ্য বিক্রি করেন।
অভিযুক্তরা হলো পানজোড়া এলাকার আউয়াল ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩৫) এবং তার বোন সালেহা বেগম। তারা ভুক্তভোগীর আপন ভাই ও বোন।
এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম এবং তার বোন সালেহা বেগমের সঙ্গে ব্যবসায়ী আ: ছালামের পারিবারিক জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলছে। অভিযুক্ত সালেহার কু-পরামর্শে শফিকুল ইসলাম ভুক্তভোগীর পৈতিক সূত্রে পাওয়া ৩৬ শতাংশ জমি এবং ক্রয় সূত্রে মালিক হওয়া আরো ৪১ শতাংশ জমিসহ মোট ৭৭ শতাংশ  জমি জোড় পূর্বক দখলের পাঁয়তারা করছে। গত ১৩ জুন বিকেলে ওই জমিতে গিয়ে দেখেন প্রায় ১২ লাখ টাকা মূল্যমানের ৬০টি ফলজ ও বনজ গাছ কেটে ফেলেছে অভিযুক্তরা। এর প্রতিবাদ করলে ওই সময় তাকে মারার চেষ্টা করে অভিযুক্তরা। এছাড়াও গাছ কাটার বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে ভুক্তভোগীকে হত্যার হুমকি প্রধান এবং মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করবে বলে হুমকি দেয় অভিযুক্তরা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম বলেন, “সকল অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট। প্রায় বিশ বছর যাবৎ ওই জমি আমার ভোগদখলে রয়েছে। আমি নিজের জমি থেকে গাছ কেটেছি।”
ভুক্তভোগী আ: ছালাম বলেন, “পৈতিক ও ক্রয় সূত্রে মালিক হওয়া জমিতে আমার নিজ হাতে রোপণ করা গাছ জোড় পূর্বক কেটে ফেলেছে অভিযুক্তরা। আমার জমিতে আমাকে প্রবেশ করতে বাঁধা দেন তারা। এসব পুলিশকে জানালে আমাকে হত্যার হুমকি দেয় অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম। ঘটনার পর ১৩ জুন থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। এরপর ঘটনা তদন্ত করতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ।
কালীগঞ্জ থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জিল্লুর রহমান বলেন, “এজাহার দায়ের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। গাছ কাটার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।”

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button