গাজীপুর

শ্রীপুর সাব-রেজিস্ট্রী অফিসে চলছে অনির্দিষ্টকালের কলম বিরতি: দূর্ভোগে সাধারন মানুষ

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : শ্রীপুর সাব-রেজিস্ট্রী অফিসে দলিল লিখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির অনির্দিষ্টকালের কলম বিরতির প্রভাব পড়ছে সাধারন মানুষের উপর।

প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে অফিসের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে অফিস। এতে জমি ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়েরই সমস্যার সম্মুখিন হতে হচ্ছে।

বিক্রেতাদের মধ্যে অনেকেই আর্থিক সংকটে ভোগছেন, অন্যদিকে জমি ক্রেতারা বায়নাপত্র দলিল মূলে আংশিক টাকা দিয়েও বিপাকে পড়েছেন।

ইকবাল হোসেন নামে জৈনক ব্যক্তি কর্মের উদ্দেশ্যে বিদেশ যাবেন। জমি বিক্রির সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেও রেজিস্ট্রী করতে না পারায় তিনিও বিপাকে আছেন।

আলমগীর নামে এক ব্যক্তি জানান, তিনি জমি বন্ধক রেখে ব্যাংক থেকে ঋণ উত্তোলন করেন বাড়ী নির্মাণের জন্য। অধিকাংশ টাকা কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারলেও জমি বিক্রি ছাড়া বাকী টাকা নির্ধারিত সময়ে পরিশোধ করা সম্ভব নয়।

চিকিৎসা ও ঋণ পরিশোধের জন্য নগদ অর্থের প্রয়োজন আয়েশা খাতুন নামে এক মহিলার, তার নিজ নামীয় জমি বিক্রির জন্য বায়নাপত্র দলিল করেন কিন্তু জমি রেজিস্ট্রী না করতে পারায় বাকী টাকাও পচ্ছেন না।

অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ জানুয়ারি বিদায়ী সাব-রেজিস্ট্রার সৈয়দ নজরুল ইসলাম সর্বশেষ অফিস করেন। তিনি অবসরে যাওয়ার পর থেকেই কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। সেই প্রেক্ষিতে ০৬ ফেব্রুয়ারি গাজীপুর সদর সাব-রেজিস্ট্রী ও যৌথ সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের (দুটো অফিসের) দায়িত্বে থাকা সাব-রেজিস্ট্রার মো. মনিরুল ইসলাম (মনি) কে শ্রীপুর সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের খন্ডকালীন দায়িত্ব হিসাবে ৩য় আরেকটি অফিসের অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয় কর্তৃপক্ষ।

শ্রীপুরে যোগদানের দিন শ্রীপুর সাব-রেজিস্ট্রী অফিসে দলিল লিখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির কর্মকর্তারা খন্ডকালীন নিযুক্ত সাব-রেজিস্ট্রারের সাথে অফিস পরিচালনার বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়া আলোচনা করেন। কিন্তু আলোচনা ফলপ্রসূ না হওয়ায় নিয়মিত সাব-রেজিস্ট্রার নিয়োগ এবং অফিসকে দূর্নীতি ও দালাল মুক্ত করতে স্থানীয় দলিল লিখক ও ষ্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতি কলম বিরতী পালনের ঘোষনা দিয়েছে।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি রবিবার সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিক ভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য কলম বিরতী পালনের ঘোষনা দিয়েছে দলিল লিখক ও ষ্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতি।
এর পর থেকে প্রতিদিনই অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচী, বিক্ষোভ মিছিল করে আসছে সমিতি।

এ বিষয়ে জেলা রেজিস্ট্রার শ্রীপুর অফিসে এসে সমিতির কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেও কোন সমাধান দিতে পারেনি।

সমিতির সভাপতি শাহজাহান মন্ডল জানান, দায়িত্বপ্রাপ্ত সাব-রেজিস্ট্রার মো. মনিরুল ইসলাম (মনি) একজন সমালোচিত ব্যক্তি। উনার বিরুদ্ধে ঘুষ, দূর্নিতি সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ সম্পর্কে আমরা শুনেছি। তাই আমরা অন্য একজন নিয়মিত সাব-রেজিস্ট্রার চাই।

এ বিষয়ে সাব-রেজিস্ট্রার মো. মনিরুল ইসলাম (মনি) জানান, আমি এই অফিসের দায়িত্বে এসে এখন পর্যন্ত তাদের কোন দলিল দাখিল পাইনি। উনারা আমাকে কোন প্রমাণ ছাড়া সমালোচিত করতে পারেন না। তিনি আরও জানান, আমি সরকারী কর্মকর্তা সরকারী নির্দেশে আমি এখানে এসেছি, আমার আদেশ বহাল থাকাকালীন আমাকে অফিসে আসতেই হবে এবং আমি আসতে বাধ্য।

উল্লেখ্য যে, গত ১২ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার গাজীপুর অফিসের হালিম ভূইয়া নামে একজন দলিল লিখক বাদী হয়ে শ্রীপুর অফিসের চার জনের নাম উল্লেখ করিয়া শ্রীপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগ মতে, বাদী হালিম ভূইয়া শ্রীপুর অফিসে দলিল দাখিল দিতে আসলে, তাকে বাধা দেওয়া হয় এবং অফিসের বারান্দায় লাঠি-সোটা দিয়ে তার ড্রাইভারের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে আহত করে। পরে আহত অবস্থায় তাকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

তবে অফিস সহকারী ও নকল নবিশদের কাছে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তারা জানান, এখানে এমন কোন ঘটনা ঘটেনি।

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button