গাজীপুর

পূবাইলে পুলিশের সহায়তায় সংখ্যালঘু পরিবারের জমি দখলের চেষ্টা

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : পুলিশ সেবা সপ্তাহের মধ্যেই মহানগরীর পূবাইলে পুলিশের সহায়তায় সংখ্যালঘু পরিবারের জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। জমিতে থাকা একটি ঘর এবং ঘরে থাকা চৌকিসহ অন্যান্য মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে দখলদারা। কেটে ফেলা হয়েছে জমিতে থাকা ছোটবড় গাছপালা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটেছে মহানগরীর পূবাইলের খোকন পেট্রোল পাম্পের সামনে।

দখল ঠেকাতে গিয়ে আহত হয়েছে সুরেশ চৌহানের রানী চৌহান (৪০)। তাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জমির মালিকদের একজন সুরেশ চৌহান (৫০) জানান, মা বুধিয়া রানী চৌহানের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমিতে তিনিসহ অপর দুই ভাই গনেশ চৌহান (৫৮) ও মহেশ চৌহান (৪৮) যুগ যুগ ধরে ঘর বাড়ি তৈরী করে বাস করছেন। বাড়ির কাছে তার মা. খালা ও দুই মামার আরো ৪৮ শতক জমি ছিল। ওই জমির মধ্যে মা, খাল ও এক মামা ৩০ শতক জমি বিক্রি করনে। কয়েক হাত বদল হয়ে দুই বছর আগে ওইজমি কিনেন ঢাকার ব্যবসায়ী আবু সাঈদ। দখল বুঝে নিয়ে তিনি জমিতে সীমানা প্রচীরও নির্মাণ করেছেন। এক বছর ধরে তাদের আরো ৯ শতক জমি জোরপূর্বক দখল করে নিয়োর চেষ্টা করে আসছিলেন আবু সাঈদ। এ ঘটনায় তারা তিনভাই দখলে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা করেন।

মামলা চলা অবস্থাতেই বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে পূবাইল থানা ছাত্রলীগেরে সভাপতি টুটুল মৃধা ও যুবলীগ নেতা মাসুদ সরকারের নেতৃত্বে আবু সাঈদের শ্বশুর পূবাইলের বরাদল এলাকার আমজাদ মোল্লা দুই শ্যালক পনি মোল্লা ও রুবেল মোল্লা ২৫-৬৮ জন লোক নিয়ে এসে ঘর ভেঙ্গে মালামালসহ নিয়ে যায়। তারা বিভিন্ন প্রকার ছোটবড় গাছপালা কেটে দেয়াল নির্মান শুরু করে। বাড়িতে পুরুষ মানুষ না থাকায় মহিলারা বাধা দিতে গেলে রুবেল মোল্লার হামলায় তার স্ত্রী রানী চৌহান আহত হয়। রুবেল খুরে মামলার আসামি।

দখলবাজি চলার সময় পূবাইল থানার এসআই লুৎফর রহমান ১০ গজ দূরে খোকন পেট্রোল পাম্পের সামনে পুলিশ নিয়ে বসেছিলেন। তার কাছে সাহায্য চাইতে গেলে নারীদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল দিয়ে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়ার হুমকি দেন। দখল চলাকালে তার মেয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী স্বর্ণা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে। দেখতে পেয়ে এসআই লুৎফর মোবাইল কেড়ে নিয়ে ভিডিও মুছে ফেলে। উপায় না পেয়ে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিলে পুবাইল থানার ওসি ঘটনাস্থলে এসে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ বন্ধ করেন।

আবু সাঈদের শ্যালক পনি মোল্লা জানান, তার ভগ্নিপতি পরে আরো ১০ শতক জমি কালীগঞ্জের ইকবাল ইউসুফের কাছ থেকে কিনেছেন। সুরেশ ও তার ভাইয়েরা অবৈধ ভাবে জমি দখল করে রেখেছেন।

জিএমপি’র পূবাইল থানার এসআই লুৎফর রহমান জানান, ওসির নির্দেশে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। সুরেশদের ওখানে কোন জমি নেই।

জিএমপি’র পূবাইল থানার  অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল ইসলাম জানান, তিনি কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। উভয় পক্ষের কাগঝপত্র দেখে জমি মেপে বিষয়টি ফয়সালা করে দেয়া হবে।

 

সূত্র: কালের কণ্ঠ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button