গাজীপুর

এবার কালিয়াকৈর থেকে ৯ কোটি টাকার অবৈধ ‘সাপের বিষ’সহ ২ জন আটক

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : এবার কালিয়াকৈর থেকে প্রায় নয় কোটি টাকা সমমূল্যের অবৈধ সাপের বিষসহ পাচারকারী চক্রের মূল হোতাসহ দুই জনকে আটক করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সদস্যরা।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) দিবাগত রাতে তাদের আটক করা হয়।

দেশে সাপের বিষ কেনা-বেচার বৈধতা না থাকলেও রুট হিসেবে ব্যবহার করছে পাচারকারীরা। অবৈধ এই বিষ বাংলাদেশ হয়ে ইন্দোনেশিয়া মালয়েশিয়াসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার।

সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ রেজাউল হায়দার বলেন, এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকা থেকে আমদানি নিষিদ্ধ প্রায় দশ লাখ টাকা মূল্যের ‘সাপের বিষ’ সহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল সিআইডি সদস্যরা। পরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। ওই মামলার তদন্তকালে গােপন সংবাদের ভিত্তিতে সিআইডি জানতে পারে, এরকম আরও কয়েকটি বড় ধরনের পাচারকারী চক্র সক্রিয় রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত রাতে সাপের বিষ পাচারকারী চক্রের মূলহােতা ও তার সহযোগীকে আটক করা হয়।

তিনি আরো বলেন, বুধবার (২৫ নভেম্বর) দিবাগত রাতে কালিয়াকৈর এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় নয় কোটি টাকা সমমূল্যের সাপের বিষসহ পাচারকারী চক্রের মূল হোতা মো. মামুন তালুকদার (৫১) ও তার সহযোগী মো. মামুনকে (৩৩) আটক  করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে দু’টি বড় লকার, ছয়টি কাঁচের কৌটায় সংরক্ষিত সাপের বিষ উদ্ধার করা হয়েছে। যার প্রত্যেকটি বোতলের গায়ে COBRA Snake Poison of France, Red Dragon Company, COBRA CODE No-80975, Made in France লেখা রয়েছে।

সিআইডির এই কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশে সাপের বিষ ক্রয় কিংবা বিক্রয়ের বৈধতা নেই। মূলত সাপের বিষ পাচারের জন্য বাংলাদেশকে রুট হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল পাচারকারীরা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাচারকারীদের কাছে থেকে জানা যায়, বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশ থেকে সাপের বিষ লেনদেন হয়। এটার অবশ্যই বৈশ্বিক মার্কেট রয়েছে, তবে বাংলাদেশে এটা বিক্রির কোনও বৈধতা নেই। দেশের বাইরে থেকে এই সাপের বিষ কোনও না কোনওভাবে বাংলাদেশে এসেছে।‌ দুই তিন হাত ঘুরে হয়তো এই চক্রের মাধ্যমে দেশের বাইরে পাচার হতো।

সিআইডি বলছে, এই‌ সাপের বিষ ওষুধ তৈরি করার ক্ষেত্রে‌ ব্যবহৃত হয়। তবে বাংলাদেশে ফার্মাসিউটিক্যালে এটি ব্যবহার করার জন্য আইনের বৈধতা নেই। যে কারণে এটি বাংলাদেশের ব্যবহারের সুযোগ নেই। আমরা এখনও নিশ্চিত না যে এটা ঠিক কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে জব্দ করা বিশ্বের কনটেইনার গুলোতে ‘মেড ইন ফ্রান্স’ লেখা।

সিআইডি কর্মকর্তা শেখ রেজাউল হায়দার আরও বলেন, আমরা এই চক্রের সাথে ৭/৮ জনের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছি। যেহেতু সাপের বিষ লেনদেন ক্রয়-বিক্রয় এবং পাচার আইনত অপরাধ। সেজন্য তাদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হবে।

 

এ সংক্রান্ত আরো জানতে…..

গাজীপুরে সিআইডি’র অভিযান: ১০ লাখ টাকার ‘সাপের বিষ’ সহ গ্রেপ্তার ৩ জন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close