গাজীপুর

নাগরী উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে গিয়ে আওয়ামী লীগ থেকে আজীবন বহিষ্কার তিন নেতা

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : কালীগঞ্জের নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের শূন্য পদের উপনির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় তিন নেতাকে দল থেকে আজীবন বহিস্কৃারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রোববার (০৪ অক্টোবর) সকালে কালীগঞ্জ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক (আইনজীবী) সিরাজ মিয়া এবং নাগরী ইউনিয়ন যুব লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদ মোজ্জাম্মেল হক কাকনকে দলীয় পদসহ আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য পদ থেকে আজীবন বহিস্কৃারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভা শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল মতিন সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আবুবকর চৌধুরী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত পৃথক তিনটি চিঠিতে তাদের বহিস্কৃারের সিদ্ধান্তের বিষয়ে ওই তিন নেতাকে জানানো হয়েছে।

চিঠিতে তিনকে জানানো হয়েছে, আগামী ২০ অক্টোবর নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নির্ধারণের জন্য গত ১৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সভায় একক প্রার্থী নির্ধারণ করে দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া হয়। অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে আপনারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আপনাদের বারবার অনুরোধ করা হয় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন কাজে অংশ নেয়ার জন্য। তা না করে আপনারা বিএনপি, জামাতের ও খুনি চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নির্বাচনী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ অবস্থায় গত ১৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভার সিদ্ধান্তের আলোকে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি আপনাদের আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পদ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কারের জন্য সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

অপরদিকে, একইদিন উপনির্বাচনে অংশ গ্রহণকারী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মাঝে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ফারিজা নূর।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার সূত্রে জানা যায়, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নাগরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ অলিউল ইসলাম অলি (নৌকা মার্কা) এবং বিএনপি মনোনীত প্রার্থী নাগরী ইউনিয়ন কৃষক দলের সভাপতি রহিম সরকার (ধানের শীষ)। এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কালীগঞ্জ উপজেলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বহিস্কৃত মুজিবুর রহমান (আনারস), কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক বহিস্কৃত সিরাজ মিয়া (চশমা), নাগরী ইউনিয়ন যুব লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদ মোজ্জাম্মেল হক কাকনকে (মোটর সাইকেল) এবং নগড়ভেলা গ্রামের সাখওয়াত হোসেন মামুনকে (ঘোড়া) প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ১৫ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সহকারী সচিব (নির্বাচন ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়-২) মোহাম্মদ আশফাকুর রহমান স্বাক্ষরিত নির্বাচন সংক্রান্ত এক পত্রে জানানো হয়, স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ধারা ২০ এবং স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) বিধিমালা ২০১০ এর বিধি ১০ অনুসরে নির্বাচন কমিশন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য এবং সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে সাধারণ নির্বাচন এবং বিভিন্ন শূন্য পদে উপ-নির্বাচনের সময়সূচি নির্ধারণ করেছে।

মৃত্যুজনিত কারণে কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের শূন্য ঘোষিত চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের জন্য ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের তালিকা অনুযায়ী নাগরী ইউনিয়নে মোট ভোটার ২৭ হাজার ৯৩০ জন। এর মধ্যে ১৪ হাজার ১৫৯ জন পুরুষ ও ১৩ হাজার ৭৭১ জন মহিলা ভোটার রয়েছেন।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ফারিজা নূর বলেন, ‘নাগরী ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানের শূন্য পদে উপনির্বাচনে অংশ গ্রহণকারী দলীয় দুই প্রার্থীসহ ছয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মাঝে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ভোট গ্রহণের তারিখ ২০ অক্টোবর নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন’।

উল্লেখ্য : গত ২৫ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার ভোর ৪ টা ৩৪ মিনিটে চিকিৎসারত অবস্থায় ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে মারা গেছেন কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির মিয়া। এরপর নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ শূন্য ঘোষণা করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এর আগে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে আব্দুল কাদির মিয়ার নাম অন্তর্ভুক্ত করে গেজেট প্রকাশ করে।

 

আরো জানতে………

নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আটজন

নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন ২০ অক্টোবর

নাগরী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির মিয়ার ইন্তেকাল

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close