আলোচিত

চাঁদাবাজির অভিযোগে এসপি বেলায়েত হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : চাঁদাবাজির অভিযোগে রাজশাহী রেঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. বেলায়েত হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে সাবেক পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারীর নিকটাত্মীয় ব্যবসায়ী গোলাম মোস্তফা ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মামলাটি করেন।

এ মামলায় আরও ১৫ থেকে ১৬ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ দিদার হোসেন শুনানি শেষে মামলাটি আমলে নেন। তিনি অভিযোগকারীর বক্তব্য রেকর্ড করেন এবং পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) মামলাটি তদন্তের আদেশ দেন। পিবিআইকে আগামী ১ নভেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ারও আদেশ দেন বিচারক।

ব্যবসায়ী মোস্তফার অভিযোগ, বেলায়েত হোসেনের নেতৃত্বে ‘ডিবি’ পরিচয় দিয়ে প্রায় ১৫-১৬ জন তাকে নির্দয়ভাবে পেটায় এবং জোর করে রাজধানীতে ডিবির কার্যালয়ে নিয়ে যায়। তারা মোস্তফার কাছ থেকে ২৫ লাখ টাকা দাবি করে।

মামলার বিবরণীতে বলা হয়, ‘প্রায় দুই বছর আগে প্রাক্তন আইজিপি মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারীর কার্যালয়ে অভিযোগকারীর (মোস্তফা) সঙ্গে বেলায়েতের পরিচয় হয়। তাদের মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরি হয় এবং গত বছর ১১ আগস্ট বেলায়েত অভিযোগকারীর বাবা গোলাম মোহাম্মদের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ধার নেন। ১৫ মার্চ বেলায়েত চেকের মাধ্যমে এই টাকা পরিশোধ করেন।’

এতে আরও বলা হয়, ‘চলতি বছরের ৪ এপ্রিল বেলায়েত অভিযোগকারী বাবার কাছে এক লোককে পাঠান। লোকটি নিজেকে ডিবি কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে অভিযোগকারীর বাবাকে বলেন যে তাকে পাঁচ লাখ টাকা না দিলে তার ছেলে সমস্যায় পড়বে। পরে অভিযোগকারীর বাবা চেকের মাধ্যমে পাঁচ লাখ টাকা দেন। ১০ এপ্রিল অভিযোগকারী ও তার বাবা বুঝতে পারেন যে জালিয়াতির করে বেলায়েত এই টাকা নিয়েছে।’

মামলার বিবরণীতে আরও বলা হয়, ‘গত ৮ আগস্ট রাজধানীর ধানমন্ডিতে অভিযোগকারীর বাসায় বেলায়েত হোসেনের সঙ্গে ডিবি পরিচয়ে প্রায় ১৫-১৬ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি প্রবেশ করে। তারা ২৫ লাখ টাকা দাবি করে। তা না হলে তারা তাকে অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তার করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা ও কারাদণ্ড দেওয়ার হুমকি দেয়।’

মামলার নথিতে উল্লেখ করা হয়, মোস্তফা যখন ওই টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানায়, তখন তাকে মারধর করা হয় এবং ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। ২৫ লাখ টাকা না পেলে, বেলায়েত তাকে ক্রসফায়ার কিংবা ৮০০ বোতল ফেনসিডিলসহ মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখায়। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা করার হুমকিও দেয় বেলায়েত।

সেদিন অভিযোগকারীর বাবা বেলায়েতকে সাড়ে তিন লাখ টাকা দেন। এরপর, ১০ আগস্ট আরও ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। অভিযুক্ত বেলায়েত তাকে সাত দিনের মধ্যে ছয় লাখ টাকা দিতে বলেছে। তা না হলে মোস্তফার বিরুদ্ধে মামলার হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে মামলার অভিযোগে বলা হয়।

যোগাযোগ করা হলে এসপি বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘আমি তাকে (মোস্তফা) পাঁচ লাখ টাকা ধার দিয়েছিলাম। সে দুই দফায় এক লাখ টাকা ফেরত দিয়েছে। বাকি চার লাখ টাকা বৃহস্পতিবারের মধ্যে দিতে হবে। আমার কাছে কাগজপত্র আছে। টাকা শোধ করতে না পেরে সে আমার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করেছে।’

তিনি ওই ব্যক্তির আত্মীয় কিনা জানতে চাইলে এসপি বলেন, ‘আমরা আত্মীয় নই, পরিচিত।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close