গাজীপুর

কোভিড-১৯: কালীগঞ্জে ব্যবসায়ীসহ দুই জনের মৃত্যু

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়ে কালীগঞ্জে এক ব্যবসায়ী (৩৪) এবং উপসর্গ নিয়ে এক গৃহবধূর (৬০) মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (৩১ মে) বিকেলে ব্যবসায়ীর ও সন্ধ্যায় গৃহবধূর মৃত্যু হয়।

মৃতদের মধ্যে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়ে কালীগঞ্জ পৌরসভার বাঘারপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে এক ব্যবসায়ী মারা গেছেন এবং উপসর্গ নিয়ে পৌরসভার বাদগাতী এলাকার এক গৃহবধূকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা গেছেন।

সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাদেকুর রহমান আকন্দ।

মৃত ব্যবসায়ীর বোন বলেন, ‘আমার ভাই বেশ কিছুদিন ধরেই জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে ভোগছিলেন। রোবরবার সকালে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে করোনা টেস্টের জন্য টঙ্গী গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁকে প্রাথমিক সেবা দেওয়া হয় এবং করোনা টেস্ট করানো হয়। এতে তাঁর কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়। হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে আসলে বিকেল চারটার দিকে তাঁর মৃ্ত্যু হয়।

স্থানীয়রা বলেন, মৃত ব্যবসায়ী বেশ কিছুদিন ধরেই করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছিল। রোববার বিকেল চারটার দিকে তাঁর মৃ্ত্যু হয়। সে মূলগাঁও প্রাণ আরএফএল এলাকায় একটি জুতার দোকান এবং সেভেন রিংস সিমেন্ট ফ্যাক্টরির সামনে একটি চা দোকান পরিচালনা করত।

টঙ্গী গণস্বাস্থ্য হাসপাতালের পরিচালক (প্রশাসন) নূরুল ইসলাম নূরু বলেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে রোববার ওই যুবককে করোনা পরীক্ষার জন্য গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে আনা হয়। পরে তাঁর করোনা পরীক্ষা করানো হয়। এতে তাঁর কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। পরে তাঁকে হোম আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বিকেলে নিজ বাসায় গিয়ে সে মারা গেছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

অপর দিকে বাদগাতী এলাকার স্থানীয়রা বলেন, রোববার বিকেলে করোনা উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্টে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরেন ওই গৃহবধূ। পরে তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাদেকুর রহমান আকন্দ, রোববার সন্ধ্যায় বাদগাতী এলাকার ওই গৃহবধূকে মৃত্যু অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছে। কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিকেলে বাঘারপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে এক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। তিনি কোভিড-১৯ শনাক্ত ছিল বলে পারিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ শিবলী সাদিক বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রোটোকল মেনে মৃতদের দাফন করা হবে। মৃত ব্যবসায়ীর বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। তাঁর পরিবারের সদস্যদের কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

 

আরো জানতে…………

কালীগঞ্জে হা-মীম গ্রুপের আরও ২ জনসহ ৫ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত

কালীগঞ্জে ‘সোনালী ব্যাংক’র নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্য কোভিড-১৯ শনাক্ত

কালীগঞ্জে হা-মীম গ্রুপের আরও এক কর্মকর্তা কোভিড-১৯ শনাক্ত

কালীগঞ্জে হা-মীম গ্রুপের ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে কাভার্ড ভ্যানের চাপায় নিরাপত্তা প্রহরীর মৃত্যু

কালীগঞ্জে সর্বশেষ ২ গৃহবধূসহ কোভিড-১৯ শনাক্ত ১০৯ জনের

কালীগঞ্জে আরও এক পুলিশ সদস্যসহ ২ জন কোভিড-১৯ শনাক্ত, মোট ১০৫ জন

কালীগঞ্জে এক শিশু ও পাঁচ নারীসহ ১০ জন কোভিড-১৯ শনাক্ত, ছড়িয়ে পড়ছে পুরো উপজেলায়?

কালীগঞ্জে করোনা শনাক্ত ৯১ জনের মধ্যে ‘করোনা মুক্ত’ ৫ চিকিৎসকসহ ৩৩ জন

গাজীপুরে ‘করোনা মুক্ত’ ছাড়পত্র পেলেন সাত চিকিৎসকসহ ১১৮ জন

চিকিৎসক ও রোগীর সুরক্ষায় কালীগঞ্জে ‘করোনা ভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন

গাজীপুরে চিকিৎসক ও রোগীর সুরক্ষায় ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন

কালীগঞ্জে ১৫ দিনে ৪৩০ জনের মধ্যে ৯০ জনই করোনা শনাক্ত!

কালীগঞ্জে চার দিন বিরতি দিয়ে আবারও হাসপাতালে করোনার হানা, মোট শনাক্ত ৯০

কালীগঞ্জে নতুন করে ৯ পুলিশসহ ১৪ জন করোনা পজেটিভ, মোট ৮৯

কালীগঞ্জে নার্স, পুলিশ ও ইউএনও অফিসের কর্মীসহ একদিনে ‘সর্বোচ্চ ৩১’ জন পজেটিভ

কালীগঞ্জে ২ এসআই ও হাসপাতালের নার্সসহ ৪ জন করোনা পজেটিভ, মোট ৪৩

কালীগঞ্জে নার্সসহ আরো ২ জন করোনা পজেটিভ, মোট ৩৯ জন

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১১ ও থানার ১ জনসহ ২৩ জন করোনা পজেটিভ

কালীগঞ্জে এক শিশুসহ নতুন করে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত, আইসোলেশনে পাঠাতে বিলম্ব?

কালীগঞ্জে এক চিকিৎসক ‘করোনা’ পজেটিভ

কালীগঞ্জে ‘বহিরাগতরাই’ ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস; স্বামী-স্ত্রীসহ আরো তিনজন আক্রান্ত

কালীগঞ্জে পাঁচজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

গাজীপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক করোনা পজেটিভ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close