গাজীপুরজেলা প্রশাসন

গাজীপুরে চিকিৎসক ও রোগীর সুরক্ষায় ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ জেলার আরো চার উপজেলায় সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি, জেলা প্রশাসন ও একজন পৌর মেয়রের উদ্যোগে মোট ১৮ টি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপনের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যে ১১টি কাপাসিয়ার স্থানীয় সংসদ সদস্যের, পাঁচটি জেলা প্রশাসন এবং ২টি শ্রীপুর পৌর মেয়রের আর্থিক সহায়তায় স্থাপন করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ বহন করে আসা কোনও রোগীর মাধ্যমে যাতে হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফ ঝুঁকির মধ্যে না পড়েন সেজন্য এ বুথ গুলো স্থাপনের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে। এতে রোগীরাও নিরাপদ থাকবেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, জেলা প্রশাসনের পরিকল্পনা ও অর্থায়নে নির্দিষ্ট ডিজাইনের পাঁচটি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একটি এবং কাপাসিয়া, শ্রীপুর, কালিয়াকৈর ও কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি করে স্থাপনের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে। হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগীদের এবং চিকিৎসকদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এই ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামী ৩ মে থেকে এই বুথ থেকে সেবা দেওয়া শুরু হবে।

কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. ইসমত আরা জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে জেলা প্রশাসনের পরিকল্পনা ও অর্থায়নে কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি এবং এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমির আর্থিক সহায়তায় কাপাসিয়া উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের প্রতিটিতে একই ধরনের ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন করা হবে।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ ফাতেহ্ আকরাম বলেন, জেলা প্রশাসনের পরিকল্পনা ও অর্থায়নে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান দুইটি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ দিয়েছেন। এর মধ্যে বরমী ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র একটি স্থাপন করা হয়েছে। আরো একটি স্থাপনের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বুথ ব্যবহার সম্পর্কে ডা. প্রণয় ভূষণ দাস বলেন, বুথের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহ করার সময় নমুনা সংগ্রহকারী অবস্থান করবেন বুথের ভিতরে। আর যিনি নমুনা প্রদান করবেন তিনি থাকবেন বুথের বাইরে। এতে নমুনা সংগ্রহকারী ও প্রদানকারী একে অন্যের সংস্পর্শে যেতে হবে না। এভাবে একজন সংগ্রহকারী অধিক লোকের নমুনা সংগ্রহ করলেও তার সংক্রমণের ঝুঁকিও থাকবে না।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. শিবলী সাদিক বলেন, জেলা প্রশাসনের পরিকল্পনা ও অর্থায়নে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপনের উদ্যেগে নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে আরো কয়েকটি ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম বলেন, ভারতের একটি মডেল ও ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুরতজার এলাকায় (নড়াইল) ব্যবহৃত নমুনা অনুসরণ করে আমরা গাজীপুরে ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ স্থাপনের উদ্যোগ নিই। সম্পূর্ণ কাচ দিয়ে ঘেরা এই চেম্বারের মধ্যে একজন চিকিৎসক অবস্থান করবেন। সামনের সামান্য ফাঁকা জায়গা দিয়ে গ্লাভস পরিহিত হাত বের করে রোগীর রক্তচাপ নির্ণয় এবং থার্মাল ডিটেক্টরের মাধ্যমে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করবেন। স্থাপন করা সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে চিকিৎসক ও বাইরে থাকা রোগীর মধ্যে কথোপকথন হবে। এ সময় কোনও রোগীর তাপমাত্রা করোনাভাইরাসের উপসর্গের সঙ্গে মিলে গেলে তাকে করোনা ওয়ার্ডের আইসোলেশনে পাঠানো হবে।

গাজীপুরের সিভিল সার্জন মো. খাইরুজ্জামান বলেন, আউটডোর ও জরুরি বিভাগে করোনা উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীরা ‘করোনাভাইরাস নমুনা সংগ্রহ বুথ’ থেকে সেবা নেবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close