আলোচিতস্বাস্থ্য

করোনা সন্দেহে ঢাকার বাইরেও কয়েকশ মানুষ কোয়ারেনটাইনে

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : দেশে এখন পর্যন্ত মাত্র তিনজন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে প্রাণঘাতী এ রোগে আক্রান্ত সন্দেহে কয়েকশ ব্যক্তিকে কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে। ঢাকায় জনজীবন স্বাভাবিক থাকলেও মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বাড়ছে। সেই আতঙ্ক ছড়াচ্ছে জেলা-উপজেলা এবং গ্রামগুলোয়ও। আক্রান্ত তিনজন ছাড়া আরও আটজনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় সরকারের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। শতকোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের কোয়ারেনটাইনে রাখার জন্য পৃথক ‘জায়গার’ ব্যবস্থা করছেন জেলা প্রশাসকরা। বিএনপিসহ রাজনৈতিক দলগুলো সারাদেশে তাদের কর্মসূচি শিথিল করেছে। ঢাকার বাইরে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নানা কর্মসূচি স্থগিত করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরা এক দম্পতির শরীরে জ্বর, শ্বাসকষ্ট, কাশির লক্ষণ থাকায় তাদের বাংলাদেশ কুয়েতমৈত্রী হাসপাতালে কোয়ারেনটাইনে পাঠানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ভোরবেলা একটি ফ্লাইটে করে তারা সৌদি আরব থেকে আসেন।

এদিকে বিদেশ থেকে এলেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত, এমনটি নয়। তার পরও প্রবাস থেকে যারা আসছেন তাদের অবশ্যই বাড়িতে ১৪ দিন কোয়ারেনটাইনে থাকতে হবে। এমনই নির্দেশনা রয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পক্ষ থেকে। তবে বিদেশফেরতদের নিয়ে অনেক স্থানেই করোনা আক্রান্তের গুজব ছড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। কোথাও কোথাও তাদের সঙ্গে অস্বাভাবিক আচরণও করছে এলাকাবাসী।

আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার বলেন, দেশে যে তিন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাদের অবস্থা স্থিতিশীল। তারা একটি হাসপাতালের ‘আইসোলেশন’ ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

করোনা মোকাবিলায় ৩০ দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন। মঙ্গলবার রাজধানীর বনানীতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসভবনে এ বৈঠক হয়। এদিকে মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, উত্তরা কুয়েতমৈত্রী হাসপাতাল, পুরনো ঢাকার মহানগর হাসপাতাল, কুর্মিটোলা হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে ঢাকার বাইরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু থাকতে পারে এমন আশঙ্কায় মানিকগঞ্জে বিদেশ থেকে আসা ৫৯ ব্যক্তিকে নিজ বাড়িতে বিশেষ ব্যবস্থায় (হোম কোয়ারেনটাইন) রাখা হয়েছে। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ইতালিফেরত বাবা ও ছেলে এবং পাবনায় বিদেশফেরত তিনজনকে নিজ বাড়িতেই পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। ঝুঁকি মোকাবিলায় মোংলা বন্দরের জেটির প্রবেশমুখে একটি বহনযোগ্য থার্মাল স্ক্যানার বসানো হয়েছে। নোয়াখালী জেলা সদরে ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসোলেশন ইউনিট খোলা হয়েছে নিচতলায়। মঙ্গলবার সংক্রমণের আশঙ্কায় ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তহাট সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসায় আলাদা ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসকরা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের পরীক্ষা করতে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দর ও ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বসানো হয়েছে থার্মাল ইমেজ ডিটেকশন মেশিন।

গত ডিসেম্বরের শেষের দিকে চীনের উহান থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হয়। আড়াই মাসের কম ব্যবধানে পৃথিবীর অর্ধেক দেশে করোনা রোগী শনাক্ত হলেও বাংলাদেশে আক্রান্ত হওয়ার ঘোষণা আসে গত রবিবার। বাংলাদেশে শনাক্ত হওয়ার মাধ্যমে সার্কভুক্ত সব দেশে করোনা রোগী পাওয়া গেছে।

বিকল থার্মাল স্ক্যানার সচল, নতুন বসেছে ২টি : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সচল থাকা করোনা ভাইরাস শনাক্তকরণে তৃতীয় থার্মাল স্ক্যানারটিও সোমবার রাতে বিকল হওয়ার পর গতকাল তা সচল করা হয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরও দুটি। এর আগে আরও দুটি বিকল হয়ে পড়ে ছিল।

ইবোলা সংক্রমণ শুরু হলে ২০১৪ সালের নভেম্বরে বিমানবন্দরে তিনটি থার্মাল স্ক্যানার মেশিন বসানো হয়। তিনটি মেশিনের মধ্যে একটি ভিআইপি জোনে, বাকি দুটি সাধারণ যাত্রীদের যাতায়াতের স্থানে রয়েছে।

সৌদিফেরত দম্পতি কোয়ারেনটাইনে : সৌদি আরব থেকে ফেরা এক দম্পতিকে কোয়ারেনটাইনের জন্য রাজধানীর একটি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সোমবার রাতে তাদের হাসপাতালো পাঠানো হয়।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, ‘সৌদি আরব থেকে সোমবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ওই দম্পতি তাদের এক ছেলেসহ দেশে আসেন। তাদের শ্বাসকষ্ট এবং নিউমোনিয়ার লক্ষণ ছিল। তারা সৌদি আরবে অনেক দিন ধরেই চিকিৎসা করিয়েছেন বলে আমাদের জানিয়েছেন, কিন্তু সে দেশে তাদের শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি।’ সৌদিফেরত দম্পতির বয়স প্রায় ৭০-এর কাছাকাছি। বয়স আর লক্ষণগুলো আছে বলেই তাদের কোয়ারেইনটানে পাঠানো হয়েছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে এই দম্পতির ছেলেও সৌদি আরবে থাকেন। তিনি দেড় মাস আগে সৌদি আরব থেকে চীনে গিয়েছিলেন। তিনিও বাবা-মায়ের সঙ্গে দেশে এসেছেন। যদিও ছেলের কোনো লক্ষণ নেই।

নতুন রোগী শনাক্ত হয়নি : দেশে নতুন করে করোনার রোগী শনাক্ত হয়নি। তবে সন্দেহভাজন হিসেবে আটজনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার আইইডিসিআর নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ কথা বলেন। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এএসএম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন। ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সাতজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে বিদেশফেরত যাত্রী রয়েছেন। তবে কারও শরীরে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেনটাইনে আছেন চারজন।

অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী পর পর দুবার নমুনা পরীক্ষায় যদি আক্রান্তের দেহে ভাইরাসের উপস্থিতি নেগেটিভ পাওয়া যায় তা হলেই হাসপাতাল থেকে তাদের ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

অধ্যাপক ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭টিসহ এখন পর্যন্ত মোট ১২৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের কেউ আক্রান্ত না। এদিকে করোনা সংক্রান্ত হটলাইন চালুর পর গত ২৪ ঘণ্টায় ২৭৬৮টি কল এসেছে বলে জানান তিন।

বিজিএমইএর হটলাইন ও হেলথ সেন্টার চালু

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে পোশাক খাতসংশ্লিষ্টদের জন্য হটলাইন চালু করেছে বাংলাদেশ গার্মেন্ট ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএমইএ)। হটলাইন নম্বরটি হচ্ছে- ০১৭৩০৪৪২২১১। একই সঙ্গে ১০টি হাসপাতাল ও হেলথ সেন্টার প্রস্তুত রেখেছে সংগঠনটি।

এ বিষয়ে বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক জানান, উত্তরায় বিজিএমইএর প্রধান কার্যালয়ে কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়েছে। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই রুম খোলা থাকবে।

এদিকে বর্তমানে সারাদেশেই ছড়িয়ে পড়েছে করোনা আতঙ্ক। ভাইরাসটি মোকাবিলায় নেওয়া হয়েছে বাড়তি সতর্কতা। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বিভিন্ন হাসপাতাল ও প্রতিষ্ঠান। জেলায় জেলায় গঠন হয়েছে বিশেষ কমিটি। অনেক স্থানেই বিদেশ ফেরতদের হাসপাতাল কিংবা বাড়িতেই কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ থেকে জানানো হচ্ছে বিস্তারি।

মাদারীপুর : মাদারীপুরে আসা এক প্রবাসীর করোনাভাইরাসের বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিলে তিনি আইইসিডিআরকে জানান। পরে তাকে ঢাকায় আইসোলেশনে রাখা হয়। এ ছাড়াও তিনি এলাকার যাদের সঙ্গে যোগযোগ করেছেন এমন ২৯ জনকে চিহ্নিত করে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

মানিকগঞ্জ : করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সম্প্রতি বিদেশফেরত ৬৩ ব্যক্তিকে তাদের বাড়িতে বিশেষ ব্যবস্থায় (কোয়ারেনটাইন) রাখা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় চার নারীসহ ৩২ জন, সাটুরিয়া উপজেলায় ২৪, শিবালয়ে ছয়, দৌলতপুরে দুই এবং সিংগাইরে একজন। তারা ইতালি, চীন, দক্ষিণ আফ্রিকা, সৌদি আরব ও সিঙ্গাপুর থেকে দেশে এসেছেন।

এদিকে আক্রান্ত ব্যক্তিদের তাৎক্ষণিক চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে মঙ্গলবার থেকে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ১২ বেডের করোনা আইসোলেশন ইউনিট চালু করা হয়েছে।

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) : সাটুরিয়ায় এক সপ্তাহে বিদেশফেরত ২৪ যুবককে নজরদারিতে রেখেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাদের শরীরে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ আছে কিনা বাড়ি বাড়ি গিয়ে পরীক্ষা করে দেখছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) : এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে ইতালিফেরত বাবা-ছেলেসহ পরিবারের পাঁচ সদস্যকে বাড়িতে কোয়ারেনটাইনে রেখেছে উপজেলা প্রশাসন। ওই পরিবারের সদস্যরা জানান, গত ৪ মার্চ বাবা ও ছেলে ইতালি থেকে দেশে এসেছেন। প্রশাসন তাদের সোমবার রাত থেকে বাইরে না বের হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে।

নোয়াখালী : নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার জাহাজমারা ইউনিয়নের এক কাতারপ্রবাসীকেও কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে। গত সোমবার বিকালে তিনি দেশে আসেন। ১৫ দিন ধরেই এ যুবক জ¦র ও কাশিতে ভুগছেন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য গেলে চিকিৎসক তার উপসর্গগুলো দেখে করোনা সন্দেহে নিজ বাড়িতেই কোয়ারেনটাইনে থাকতে বলেন। এদিকে মঙ্গলবার সকালে বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের আটবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই-তিন শিক্ষার্থী জ্বর ও কাশি নিয়ে বিদ্যালয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর মোট ২৪ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে।

চাঁদপুর : মতলব উত্তর উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ইতালিফেরত এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দেশে আসা ওই ব্যক্তিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি আলাদা ভবনে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

দিনাজপুর : জেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশে আক্রান্ত করোনা ভাইরাস রোগীদের জন্য একশ বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ১৩ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি এবং ১১ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা কমিটি প্রস্তুত করে জেলা ও উপজেলায় কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close