আইন-আদালতগাজীপুর

মুজিববর্ষে গাজীপুর পাচ্ছে সিএমএম আদালত

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : মুজিববর্ষেই গাজীপুর মহানগরীতে স্থাপন করা হচ্ছে চিফ ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত।

এরই মধ্যে নগরীতে সিএমএম আদালত স্থাপনের জন্য বিচারকসহ আনুষঙ্গিক পদ সৃজনের প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পাওয়া গেছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ শেষে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করবে সরকার।

নতুন মহানগর এলাকায় জেলা আদালতের ওপর মামলার চাপ কমাতেই সিএমএম আদালত স্থাপন করা হচ্ছে বলে আইন মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে।

বর্তমানে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট এবং বরিশাল মহানগরীতে সিএমএম আদালত রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, দেশে থাকা বিপুল পরিমাণ মামলার জট কমাতে সরকার একের পর এক পদক্ষেপ নিয়ে যাচ্ছে। মুজিববর্ষে সরকার উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মামলা নিষ্পত্তির পরিকল্পনা নিয়েছে। এ জন্য প্রয়োজনীয় বিচারক নিয়োগ দেওয়ার পাশাপাশি আদালতও স্থাপন হবে। নতুন সিএমএম আদালতও তার অংশ।

সিএমএম আদালত হলে গাজীপুর মহানগর এলাকায় মামলার জট কমবে বলেও মনে করেন আইনমন্ত্রী।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের আওতায় রয়েছে আটটি থানা। জিএমপির আওতাধীন আটটি থানা হলো- সদর, বাসন, কোনাবাড়ি, কাশিমপুর, গাছা, পূবাইল, টঙ্গী পূর্ব ও টঙ্গী পশ্চিম থানা।

আইন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, গাজীপুরে সিএমএম আদালত স্থাপনের জন্য জনবলসহ প্রয়োজনীয় আর্থিক বিষয়ে অনুমোদন আইন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে জনপ্রশাসন ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর তা যায় সচিব কমিটিতে। সেখানে অনুমোদনের পর প্রস্তাবটিতে সায় দেন প্রধানমন্ত্রীও। এখন বিষয়টির পৃষ্ঠাংকনের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে শিগগিরই সরকারি আদেশ বা জিও জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন আইন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

‘গাজীপুর মহানগরী পুলিশ বিল-২০১৮’ এবং ‘রংপুর মহানগরী পুলিশ বিল-২০১৮’ জাতীয় সংসদে পাস হয়। এরপর এই দুই মহানগর এলাকায় প্রয়োজনীয় অন্য সব পদ সৃজন করা হলেও বিচার বিভাগীয় কোনো পদ সৃজন করা হয়নি। ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর নতুন দুই মেট্রোপলিটন পুলিশের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

 

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close