গাজীপুর

গাজীপুরের ৩৫২ ইটভাটার মধ্যে ২৭৪টিই অবৈধ

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : গাজীপুরের প্রায় ৮০ ভাগ ইটভাটাই অবৈধ। ট্রেড লাইসেন্স, পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসকের অনুমোদন ছাড়া চলা এসব ভাটায় প্রতিবছর হাজার টন কাঠ পোড়ানো হয়। এ জন্য উজাড় হচ্ছে বন। প্রায় অর্ধেক ইটভাটাই সিটি করপোরেশন এলাকায় পড়েছে। সবগুলোই অবৈধ। পৌরসভা এলাকা এবং কৃষিজমির পাশে গড়ে তোলা এসব ভাটার কারণে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।

গাজীপুরে ইটভাটা রয়েছে ৩৫২টি। এর মধ্যে ২৭৪টি অবৈধ।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সিটি করপোরেশন এলাকার ১৭৩টি ভাটাই অবৈধ। এ ছাড়া শ্রীপুর উপজেলার ২২টি ভাটার মধ্যে ১২টি, কালিয়াকৈরের ৪১টির মধ্যে ২২টি, কাপাসিয়ায় ৩৪টি ভাটার ২৮টি, কালীগঞ্জে ২২টির মধ্যে ১৮টি অবৈধ। আর সদর উপজেলায় ইটভাটা আছে ৬০টি, যার ২১টি অবৈধ।

২৯ নভেম্বর প্রথম আলো- পত্রিকায় প্রকাশিত ‘দেদার গড়ে উঠেছে ইটভাটা’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ সকল তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানীর বায়ুদূষণ কমাতে ঢাকা ও এর পাশের চারটি জেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে অবৈধ সব ইটভাটা ১৫ দিনের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গত মঙ্গলবার এ নির্দেশ দেন।

গত দুই দিনের সরেজমিনে দেখা গেছে, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের বাঘিয়া, কাতলাখালী, জয়েরটেক, আহাকী ও রাজাবাড়ী এবং ১২ নম্বর ওয়ার্ডের বাইমাইল, সিটির সালনা, নছের মার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকায় গড়ে উঠেছে শতাধিক ইটভাটা। অধিকাংশ ভাটার অবস্থান বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও আবাসিক এলাকার পাশে।

জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম বলেন, সিটি করপোরেশন এলাকা থেকে ভাটা সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনো ভাটার মালিক তা আমলে নেননি। আদালতে রিট করে এবং স্থগিতাদেশ নিয়ে চলছে সিটি করপোরেশন এলাকার শতাধিক ভাটা।

গেল বর্ষা মৌসুমে পানি উঠে যাওয়ায় অনেক ইটভাটা এমনিতেই বন্ধ ছিল। এসব নিচু এলাকার পানি সরে যাওয়ায় ফের ভাটাগুলো চালু করার উদ্যোগ নিয়েছেন মালিকেরা। এরই মধ্যে অনেক ভাটায় ইট পোড়ানো শুরু হয়েছে। গত বুধবার গাজীপুর বাইমাইল, আহাকী ও রাজাবাড়ী এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, এমজেবি ভাটায় ইট পোড়ানো শুরু হয়েছে। ওই এলাকায় মালেক সরকার ও সামছুল ইসলামের বিএবি ভাটায় আগুন জ্বালিয়ে ইট পোড়ানো শুরু হয়েছে। আশপাশের অন্য ভাটার মালিকেরাও ইট পোড়ানোর জন্য ভাটা প্রস্তুত করেছেন।

গাজীপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবদুস সালাম সরকার বলেন, এবার ৫০টির বেশি ভাটার মালিকেরা ইট পোড়ানোর প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করেছেন। গত মৌসুমে ৪২টি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে ভাটা ভেঙে দেওয়া হয়।

 

আরো জানতে….

ঢাকার আশপাশের ইটভাটা বন্ধের নির্দেশ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close