আলোচিত

এনটিভির সাংবাদিক বুলবুলকে ফিল্মি স্টাইলে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল এনটিভির সিলেট ব্যুরো প্রধান মঈনুল হক বুলবুলকে ফিল্মি স্টাইলে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এক প্রবাসী কর্তৃক আদালতে প্রতারণার মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল চত্বর থেকে তাকে একদল সাদাপোষাকী অস্ত্রধারীরা তুলে নিয়ে যায়। তবে প্রথমদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি অস্বীকার করা হয়।

পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে সিলেট জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও মিডিয়া কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম তাকে জেলার কানাইঘাট থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বলে সাংবাদিকদের জানান।

একই ভাবে কানাইঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সামছুদ্দোহাও গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত ১৬ সেপ্টেম্বর কানাইঘাটের কারাবাল্লা এলাকার রায়হান আহমদ প্রতারণার অভিযোগ তুলে সিলেট আদালতে একটি মামলা করেন। আদালত পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সাংবাদিক বুলবুলকে তুলে নেয়ার খবরে তাৎক্ষণিক হাসপাতাল চত্বরে ছুটে যান সংবাদকর্মীরা। সেখানে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে বক্তব্যও নেন তারা। তবে পুলিশ স্বীকার না করায় ক্ষোভও প্রকাশ করেন।

এদিকে, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন (ইমজা), সিলেটের সভাপতি বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুর আহমদ এক বিবৃতিতে বলেন, কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে পুলিশ অবশ্যই তাকে গ্রেপ্তার করার অধিকার রাখে। কিন্তু যেভাবে ফিল্মি স্টাইলে বুলবুলকে আটক করা হয়েছে তা খুবই উদ্বেগজনক ও নিন্দনীয়।

ইমজা নেতৃবৃন্দ বলেন, এভাবে একজন প্রতিষ্ঠিত সাংবাদিককে তুলে নেওয়া কেবল আইনের অপপ্রয়োগই নয়, একইসঙ্গে আইনশঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার বলেও আমরা মনে করি।

বুলবুলকে আটকের ক্ষেত্রে যথাযথ আইনী প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়নি দাবি করে তারা বলেন, বুলবুলকে আটকের পর এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের লুকোচুরিও আমাদের বিষ্মিত করেছে। আমরা আটকের ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও মইনুল হক বুলবুলের নিশর্ত মুক্তি দাবি করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close