গাজীপুর

শ্রীপুরে স্ত্রীকে হত্যার পর ডেসিং টেবিলের ড্রয়ারে দেহের ৫ টুকরো রেখে পালিয়েছে স্বামী!

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : শ্রীপুরে সুমি আক্তার (২০) নামে এক নারী পোশাক শ্রমিককে হত্যার পর ডেসিং টেবিলের ড্রয়ারে দেহের ৫ টুকরো রেখে পালিয়েছে তার স্বামী।

সোমবার রাতে উপজেলার মাষ্টারবাড়ির গিলারচালা এলাকা থেকে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ওই নারীর দেহের ৫ টুকরো মাংস উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত (সাড়ে ৯টা) পর্যন্ত নিহতের মাথা, হাত-পাসহ অন্যান্য অংশের কোন খোঁজ পায়নি পুলিশ।

পুলিশ ও নিখোঁজ নারী শ্রমিকরে স্বজনদের ধারণা, সুমিকে তার স্বামী হত্যার পর মাংসের টুকরো পলিথিনে মোড়িয়ে ডেসিং টেবিলের ড্রয়ারে রেখে পালিয়েছে।

নিহত সুমি আক্তার নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার দেবকান্দা গ্রামের নিজাম উদ্দিনের মেয়ে। তিনি স্বামী মামুনকে (২২) রয়েছে পলাতক। কে নিয়ে গিলারচালা এলাকায় বিপুল হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তার স্বামী ইলেকট্রিক মিস্ত্রী এবং তিনি স্থানীয় সাবলাইম গ্রীনটেক নামক একটি কারখানায় চাকরি করতেন।

সুমির বোন বৃষ্টি জানান, তিনি ও সুমি আক্তার একই কারখানায় চাকুরি করেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে কারখানায় তাদের দেখা ও কথা হয়। ঈদ করতে শুক্রবার সুমির বাবার বাড়ি নেত্রকোনায় যাওয়ার কথা ছিল। শুক্রবার সকালে সুমির স্বামী মামুন তাদের মাকে ফোনে জানিয়েছে সুমিকে সে বাসে তুলে দিয়েছে। বিকেল গড়িয়ে গেলেও সুমি বাড়িতে না পৌছলে তার মা বিষয়টি তাকে জানায়। তারা বোনজামাই মামুনের সাথে যোগাযোগ করে এবং তার কথায় আশ্বস্থ হয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। পরদিন শনিবারও সুমি বাড়িতে না পৌঁছলে তিনি (বৃষ্টি) সুমিদের ভাড়া বাড়িতে গিয়ে খোঁজ করেন। এসময় বাড়ির লোকজন মামুনকে বড় ব্যাগ নিয়ে যেতে দেখেছে তবে সুমিকে দেখেনি বলে জানায়। পরে তিনি তালা ভেঙ্গে ঘরের ভেতর দেখেন এবং বোনকে না পেয়ে নতুন তালা লাগিয়ে চলে যান।

তিনি আরো জানান, শনিবার থেকে মামুনের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

বৃষ্টি আরো জানান, ঈদের দিন সোমবারও সুমি বাড়িতে না পৌঁছলে সন্ধ্যা ৬টার দিকে তিনি ফের বোনের ভাড়া বাড়িতে যান। ঘরের দরজা খুলতেই দুর্গন্ধ পেয়ে তল্লাশি করে ডেসিংটেবিলের ড্রয়ারে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় মাংসের টুকরো গুলো দেখতে পান।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সুমিকে হত্যার পর দেহ টুকরো করে ডেসিং টেবিলের ড্রয়ারে রেখে তার স্বামী মামুন পালিয়ে গেছে। পরে শ্রীপুর থানায় খবর দিলে রাতে পুলিশ টুকরো গুলো উদ্ধার করে গাজীপুরের শহীদ তাজ উদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

গাজীপুরের শহীদ তাজ উদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) প্রণয় ভূষণ দাস জানান, মঙ্গলবার বিকেলে টুকরো গুলোর ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। টুকরো গুলো মানব দেহের। তারপরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য ডিএনএ স্টেস্টের জন্য পাঠানো হবে।

শ্রীপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রাজিব কুমার সাহা জানান, শরীরের ৫ টুকরো মাংস উদ্ধার করা হয়েছে তবে মাথা, হাত-পাসহ অন্যান্য অংশ এখনো উদ্ধার হয়নি। প্রথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে – পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী তার স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়েছে। দেহের বাকি অংশ উদ্ধার এবং ঘাতককে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

বিষয়টির তদন্ত হচ্ছে এবং রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close