গাজীপুর

শহীদ ময়েজ উদ্দিনের রোপন করা গাছ বিক্রির ঘটনা ঢাকতে চেয়ারম্যানের লুকোচুরি : নেওয়া হচ্ছে আইনী ব্যবস্থা

গাজীপুর কণ্ঠ ডেস্ক : কালীগঞ্জ উপজেলার জামালপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারের বিরুদ্ধে সামাজিক বনায়নের প্রায় শতাধীক সরকারী গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অনুসন্ধানেও মিলেছে অভিযোগের সত্যতা।

এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলার চান্দেরবাগ এলাকার জান্নাতুল ফেরদৌস স’মিল (করাত কল) থেকে সরকারি গাছ সরিয়ে নিয়েছে স্থানীয় হাবু বেপারী। জান্নাতুল ফেরদৌস স’মিল স্বত্বাধিকারী মো. নাছির উদ্দিন সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আর সামাজিক গাছ কেটে নেওয়ায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নেওয়া হচ্ছে বন বিভাগের আইনী ব্যবস্থা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর আঞ্চলিক বন মামলা পরিচালক মো. আবু জাফর।

অপর দিকে ঘটনা ঢাকতে চেয়ারম্যান-মেম্বার আর গাছ বেপারী করছে লুকোচুরি।

চান্দেরবাগ এলাকার নাসির উদ্দীনের স’মিলে রাখা গাছ।

অনুসন্ধানে জানা যায়, উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের জামালপুর-দোলান বাজার-জাঙ্গালীয়া ও চান্দেরবাগ-নারগানা সড়ক এলাকার দুই পাশের শিশু, মেহগনি, আকাশী ও নিমসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় শতাধিক গাছ কেটে নেওয়ার হয়েছে।

ঘটনার পর কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান ওই ইউনিয়নের চান্দেরবাগ এলাকার মো. নাছির উদ্দিন মালিকানাধীন জান্নাতুল ফেরদৌস স’মিলে বেশ কিছু সরকারী গাছ দেখতে পান। পরে স’মিলের মালিক না থাকার কারণে কর্মচারীকে ওই গাছ সেখান থেকে কোথাও না সরানোর নির্দেশ দেন ইউএনও।

কিন্তু চেয়ারম্যানের কাছ থেকে সামাজিক বনায়নের সরকারী সে গাছ কিনে নেওয়া হাবু নামের স্থানীয় এক বেপারী ইউএনও’র নির্দেশ উপেক্ষা করে তা স’মিল মালিকের অনুপস্থিতিতে অন্যত্র সরিয়ে নেয়।

এ ব্যাপারে জান্নাতুল ফেরদৌস স’মিলের স্বত্বাধিকারী মো. নাছির উদ্দিন জানান, তিনি হজ্বে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। হাবু বেপারী তার স’মিলে ওই গাছগুলো তিনমাস আগে কাটার জন্য নিয়ে আসে। কিন্তু সরকারী গাছ হওয়ায় তিনি সে গাছ কাটেননি। কিন্তু রবিবার সকালে তার অনুপস্থিতিতে বৃষ্টির মধ্যে পিকআপ ভ্যানে করে সে গাছ সরিয়ে নেন।

কোথা থেকে আনা হয়েছে এ গাছ এমন এক প্রশ্নের জবাবে নাছির জানান, গাছগুলো চান্দেরবাগ এলাকার রাস্তার পাশের। তবে তিনি লোকমুখে শুনেছেন হাবু বেপারি স্থানীয় ইউপি মাহবুবুল রহমান খাঁন ফারুক মাষ্টারের কাছ থেকে তিনমাস আগে ৮০ হাজার টাকার বিনিময়ে কিনেছেন।

হাবু ব্যাপারীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধীকবার ফোন দিয়েও তা বন্ধ থাকায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সামাজিক বনায়নের কর্মসূচী হিসেবে ১৯৭৫ সালে উপজেলার দোলন বাজার-জাঙ্গালীয়া ও চান্দেরবাগ-নারগানা সড়ক এলাকার দুই পাশে তৎকালীন স্থানীয় সাংসদ, বর্তমান মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি’র বাবা, ঐতিহাসিক আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শহীদ ময়েজউদ্দিন আহমেদ কিছু গাছের চারা রোপন করেন। তারই অংশ হিসেবে পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালে ওই এলাকায় আরো কিছু গাছের চারা রোপন করেন সে সময়কার সাংসদ আখতারউজ্জমান।

আর সামাজিক বনায়নের প্রায় শতাধীক সরকারী গাছ কেটে নেন জামালপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মাহবুবুর রহমান খান ফারুক মাস্টার এবং ওই ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড মেম্বার ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নুরুল ইসলাম নুরী।

এ ব্যাপারে মেম্বার ও আওয়ামী লীগ নেতা মো. নুরুল ইসলাম নুরীকে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে না পেয়ে ফোন দিলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, এসে জেনে জান। পরে প্রতিবেদক ঘটনাস্থলেই আছেন বললে তিনি ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন।

জামালপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মাহবুবুর রহমান খান ফারুক মাস্টার জানান, দোলান বাজার-জাঙ্গালীয়া সড়কে নুরুল ইসলাম মেম্বার একটি ঘরের উপর ঝড়ে পড়ে যাওয়া দুইটি গাছ কেটেছেন লাগড়ির জন্য। পরে তিনি শুনতে পান কাপাইশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পার্শ্বে ৪টি গাছ কে বা কারা কেটে নিয়ে গেছে। তিনি আরো জানান, ওই গাছগুলো ইলেকট্রিক লাইনের নিচ দিয়ে যাওয়ার ফলে বিদ্যুৎ অফিসের লোকেরা দুর্ঘটনা এড়াতে প্রায় অর্ধেক কেটে রেখে ছিল। এ ব্যাপারে লোকজন লাগানো হয়েছে কিন্তু কোন তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান স’মিলে গাছ দেখার সত্যতা স্বীকার করে জানান, অভিযুক্তদের খবর দিয়ে তার অফিসে আনা হয়েছিল। তারা ঝড়ে পড়ে যাওয়া ৪-৫টি শুকনো গাছ লাকড়ির জন্য কেটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে স্বীকার করেছে।

পরে তিনি বিষয়টি স্থানীয় বন বিভাগকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করেছন বলেও জানান খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান।

এছাড়া এখন থেকে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে বলে জানান তিনি।

গাজীপুর আঞ্চলিক বন মামলার পরিচালক মো. আবু জাফর বলেন, বিষয়টি তাকে ইউএনও সাহেব অবহিত করেছেন। এছাড়া গাছ কাটার বিষয়টি তিনিসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানেন। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সামাজিক বিধি মালার আওতায় মামলা করা হবে।

 

আরো জানতে…..

কালীগঞ্জে শহীদ ময়েজ উদ্দিনের রোপন করা গাছ বিক্রির অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button
Close
Close